ইরা ও নিও……


(ছোট গল্প)

টুকটুক করে একসাথে থাকার ১১ বছর পার হয়ে গেল, আলহামদুলিল্লাহ। ইরা ভাবছিল, এই না সেদিন বউ হয়ে এলো নিওর ছোট্ট বাসায়। আর আজ কিনা তিনটা ছানা পোনার মা হয়ে গেলাম। দু একটা চুল কি পাকতে শুরু করেছে?? চোখের পলকে ১১ বছর। তার মানে একসাথে ২২ বছর পার হতেও কি এক পলকই যথেষ্ট??!!

আজকের দিনে ইরার দুটি ঘটনা বার বার মনে পড়ে যাচ্ছিল। বিয়ের দিন সে কবুল বলার অপেক্ষায় বসে আছে। কিন্তু কেউ কবুল বলাতে আসলো না। কিছু আনুষ্ঠানিকতা শেষে মেয়েদের সাইডে কাজী সাহেব আসলেন। এসে তার কাছ থেকে বিয়ের অনুমতি নিতে চাইল। ইরা ভাবল, অনুমতি আবার চাওয়ার কি আছে। তবুও পাশে দাঁড়ানো মামাকে জিজ্ঞেস করল , কি বলবো? মামা বলে দিলো, ‘বল, অনুমতি দিয়ে দিলাম’। সেও অনুমতি দিয়ে দিলো। ঘনিষ্ঠ দুই বান্ধবী পাশে দাঁড়িয়ে হাসাহাসি করছিল। এত তাড়াতাড়ি অনুমতি দিলো বলে! অথচ তারাও কিন্তু কবুল শোনার অপেক্ষায় দুইজন দুই পাশে বসে আছে!!

🥺
🥺
🥹
🥹

এদিকে ইরা তো বসে রইলো, যে বরকে বিয়ে পড়ানো হলে তার কাছে এসে কবুল বলাবে। একটু পর শুনলো, মুনাজাত হবে। তার নাকি বিয়ে হয়ে গেছে!! বাংলা সিনেমার মতো, “বলো মা, কবুউউউল”- এটা বলা ছাড়া যে বিয়ে হয়, তাই তো ইরা জানতো না!!! ব্রোকেন হার্ট ইরা চিন্তা করতে লাগলো, আরে কবুল বলতে বিয়ের কনে কত সময় নেয়, কত কাহিনী হয়… ছোটবেলায় তার খালাকে দেখেছিল কবুল বলার সময় কানতে কানতে অজ্ঞান হয়ে যাচ্ছিল …. বাংলা সিনেমা সব বিয়েতে কবুল বলে..….আর সে কিনা কবুল বলা ছাড়াই বিয়ে করে ফেললো

যাই হোক, বিয়ে, খাওয়া দাওয়া শেষ হওয়ার পর ইরার শ্বাশুড়ি তাকে আংটি পরিয়ে দিল। নাকফুল দিল। এরপর, নিওর হাত তার হাতে দিয়ে বলল, ‘আমার ছেলেকে তোমার হাতে তুলে দিলাম ‘!!

🤔
🧐

ইরা আবার ভড়কে গেল, ‘আরে এই ডায়লগ তো নিওর হাত ধরে নিওর শ্বাশুড়ি বলবে …… এরকম গন্ডগোল হচ্ছে কেন??!!!’ থাক ভাই। আকদ শেষ হয়ে নিক!!!

😎

রিসেপশনে নিশ্চয় বাংলা সিনেমার মতো বধূ বিদায় হবে…..

😂
😂
😂
😂

আজকের দিনে এই দুই ঘটনা মনে পড়ে ইরার গাল ভরে হাসি আসলো

নিওকে ইরা বলল, এগারো বছর পূর্তিতে তোমার চিন্তাভাবনা বল।

🥰
🥰
🥰

সে জানালো বিয়েটা আরো আগে করা দরকার ছিল